অযোধ্যা মামলায় ঐতিহাসিক রায় ঘোষণা সুপ্রিম কোর্টের : বিতর্কিত জমি মন্দিরের, তবে দ্বিগুণ জমিতে হবে মসজিদও
অযোধ্যা মামলায় ঐতিহাসিক রায় ঘোষণা সুপ্রিম কোর্টের : বিতর্কিত জমি মন্দিরের, তবে দ্বিগুণ জমিতে হবে মসজিদও

ওয়েবডেস্ক , ০৯ নভেম্বর :  বিতর্কটা কয়েক'শ বছরের। আর মামলা চলছিল কয়েক দশক ধরে। অবশেষে শনিবার প্রকাশ্যে এসেছে সেই বহু প্রতীক্ষিত মামলার রায়। দুই পক্ষের মধ্যে সমতা বজায় রেখেই এই রায় ঘোষণা করা হয়েছে বলে মনে করছেন বিভিন্ন মহল। যদিও রাম মন্দির পক্ষের দাবিই মান্যতা পেয়েছে এদিনের রায়ে।

অযোধ্যায় বিতর্কিত জমি পাবে রাম মন্দির পক্ষ। অর্থাত্‍ যে জমিতে বাবরি মসজিদ ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছিল সেখানেই হবে রাম মন্দির। ২.৭৭ একরের সেই বিতর্কিত জমি হিন্দুদের দেওয়ার কথাই বলা হয়েছে এই রায়ে। বলা হয়েছে বাবরি মসজিদ কোনও ফাঁকা জমিতে তৈরি হয়নি। আগে কোনও নির্মাণ ছিল ওই জমিতে। তবে ঠিক কি ছিল, সেটা আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে জানাতে পারেনি বলে জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ।

কিন্তু তৈরি হবে মসজিদও। বিতর্কিত জমিতে নয়। অন্য জমিতে মসজিদ তৈরি করা হবে। সেই জমি কোথায়, তা জানানো হয়নি তবে তাদের জন্য ৫ একর অর্থাত্‍ প্রায় দ্বিগুণ জমি বরাদ্দ করা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে নির্মোহী আখড়া সেবায়েত নয়। তাদের ট্রাস্টের সদস্য করার কথা বলা হয়েছে।

এদিন রায় ঘোষণার পর, ট্যুইট করেন নরেন্দ্র মোদী। তিনি লিখেছেন, সুপ্রিম কোর্টের রায় কারও হার বা জিত নয়। রাম ভক্তি হোক বা রহিম ভক্তি, আমাদের দেশভক্তি-র উপর জোর দেওয়া প্রয়োজন। সব জায়গায় যাতে শান্তি বজায় থাকে, সেই আর্জি জানিয়েছেন তিনি। ১৩০ কোটি ভারতবাসীকে শান্তি বজায় রাখার আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের আইনজীবী জাফারিয়াব জিলানি বলেন, 'আমরা এই রায়ে সন্তুষ্ট নই। এতে অনেক ভুল তথ্য আছে। রিভিউ করা যাবে কিনা, সেটা আমরা আলোচনা কর ব। তারপরই পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।' তবে, এই রায়কে সম্মান জানানোর পাশাপাশি শান্তি বজায় রাখার আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

রায় ঘোষণার আগে সব রাজ্যকে সতর্ক করেছে কেন্দ্র। অযোধ্যা-সহ গোটা উত্তরপ্রদেশ মুড়ে ফেলা হয়েছে কড়া নিরাপত্তার চাদরে। নিরাপত্তার প্রবল কড়াকড়ি। অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণার আগে দুর্গের চেহারা নিয়েছে মন্দিরনগরী। সব রাজ্যকে সতর্ক করে ইতিমধ্যেই চিঠি পাঠিয়েছে কেন্দ্র। নজর রাখতে বলা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। উত্তরপ্রদেশে পৌঁছে গেছে চার হাজার আধাসেনা। শুধুমাত্র অযোধ্যা জেলাতেই মোতায়েন হয়েছে ১২ হাজার পুলিশ।

আরো পড়ুন