ঐতিহাসিক পরিবর্তন ! মাতাবাড়িতে নেই ভোগের থালা , ক্ষোভ
ঐতিহাসিক পরিবর্তন ! মাতাবাড়িতে  নেই ভোগের থালা , ক্ষোভ

আগরতলা , ২৮ ডিসেম্বর : উন্নত হচ্ছে ত্রিপুরা ! মুখ্যমন্ত্রীর আদেশকে শিরোধার্য করা হচ্ছে অক্ষরে অক্ষরে ! হে , শুনতে ভালো লাগলেও আদতে বাস্তব চিত্রটা সম্পূর্ণ ভিন্ন। কথা হচ্ছে ৫১ পিঠের এক পিঠ উদয়পুর মাতা ত্রিপুরেশ্বরী মন্দির  নিয়ে। রাজ্যে নতুন সরকার গঠনের পর থেকে পর্যটনের উন্নয়নের উপর জোর দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেই মোতাবেক বেশকিছু নতুন সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে। সিদ্ধান্তের লিস্টে মাতা বাড়ির জন্যেও  একাধিক বিষয় রাখা হয়েছিল। বলা হয়েছিল মাতাবাড়িতে দর্শনার্থীদের আর প্রসাদ কিনে খেতে হবে না। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে অন্ন প্রসাদ দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। স্বাভাবিক ভাবেই এই ঘোষণায় উৎসাহিত হন রাজ্যবাসী। সব্বাই আশা করে থাকেন সেই দিনের অপেক্ষায়। কিন্তু কোথায় কি , বিনামূল্যে অন্ন প্রসাদ থাক দূরের কথা মূল্য দিয়েও এখন মিলছে না প্রসাদ। এনিয়ে দর্শনার্থীদের মধ্যে ক্রমশ বাড়ছে ক্ষোভ। অভিযোগ , মন্দিরে পূজা দিতে আসা দর্শনার্থীদের কপালে জুটছে না মাতাবাড়ির প্রসাদ। আগে যেখানে ৩০-৪০ টাকা দিয়ে অন্ন-ভোগ নিতে পারতেন মায়ের ভক্তেরা। সেখানে বর্তমানে বিনামূল্যে ভোগ দেওয়ার ঘোষণার পর থেকে টাকা দিয়েও মিলছেনা প্রসাদ। এনিয়ে মন্দির কতৃপক্ষের তরফেও স্পষ্ট কোন বক্তব্য রাখা হচ্ছে না। যার ফলে মন্দিরে আসা দর্শনার্থীদের মাঝে হতাশা আর ক্ষোভ বাড়ছে। প্রশ্ন জাগছে আচমকা কেন প্রসাদ বিতরণ বন্ধ করে দেওয়া হল মন্দিরে? বহু দূর দূরান্ত থেকে দর্শনার্থীরা মাতাবাড়িতে এসে পূজার্চনা শেষে মন্দির থেকে ভোগ নিতেন। কিন্তু এখন আর সেই সুবিধা নেই। অতি সত্তর বিষয়টি খতিয়ে দেখার আর্জি দর্শনার্থীদের। এবারে প্রশ্ন ? তাহলে মাতাবাড়িতে প্রসাদ বন্ধ হওয়ার জন্য দায়ী কে  ? যেখানে মুখ্যমন্ত্রী নিজে বিনামূল্যে প্রসাদ দেওয়ার ঘোষণা করেছিলেন সেখানে টাকা দিয়েও কেন মিলছেনা অন্নভোগ ?

আরো পড়ুন