'‌বহু বছর তাঁবুতে থেকেছেন রাম লালা, এবার সুবিশাল মন্দির'‌, রুপোর ইঁট রেখে বললেন মোদি
'‌বহু বছর তাঁবুতে থেকেছেন রাম লালা, এবার সুবিশাল মন্দির'‌, রুপোর ইঁট রেখে বললেন মোদি

ওয়েবডেস্ক , ০৫ আগস্ট : '‌সিয়াবর রামচন্দ্র কি জয়'‌। '‌জয় সিয়া রাম'‌। অযোধ্যার রাম জন্মভূমিতে ৪০ কেজির রুপোর ইঁট রেখে এই স্লোগানই দিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। বললেন আজ শুধু অযোধ্যায় নয়, গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে এই ধ্বনি।
বুধবার সকালে অযোধ্যায় রাম জন্মভূমিতে শিলান্যাস করলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। তার পরেই বললেন, '‌বহু দশকের প্রতীক্ষা শেষ। তাই ভারত আজ একটু আবেগপ্রবণ। কোটি কোটি মানুষ বিশ্বাসই করতে পারছেন না, যে জীবদ্দশায় এই দিন দেখবেন। বহু বছর তাঁবুর নীচে কাটিয়েছেন রাম লাল্লা। এবার তাঁর জন্য সুবিশাল মন্দির তৈরি হবে। এখন তিনি রাম ভক্তদের তৈরি সেই মন্দিরে থাকবেন। আজ রাম জন্মভূমি স্বাধীন হল।'‌
পরনে সোনালি সিল্কের পাঞ্জাবি আর ধুতি। চপারে করে বুধবার সকালে এসে পৌঁছলেন সরযূ নদীর তীরে এই শহরে। ২৯ বছর পর অযোধ্যায় পা রাখলেন মোদি। ভূমিপুজোয় যোগদানের আগে হনমানগঢ়ি মন্দিরে দর্শন করেন প্রধানমন্ত্রী। তার পরেই শুরু হয় ভূমিপুজো।তার পরেই প্রধানমন্ত্রী জনগণের উদ্দেশে বলেন, '‌সারা দেশ স্বাধীনতা সংগ্রামে যোগ দিয়েছিল। মন্দিরের জন্যও অনেকে বলিদান দিয়েছেন। ১৫ অগস্ট যেমন স্বাধীনতার প্রতীক। আজকের দিন তেমনই ত্যাগ, সঙ্কল্প ও সংঘর্ষের প্রতীক।'‌ তাঁর মতে, এই রাম মন্দির আমাদের সংস্কৃতির প্রতীক। রাষ্ট্রীয় ভাবনার প্রতীক। সারা দুনিয়ার মানুষ এখানে আসবেন। অতীতের সঙ্গে বর্তমানের যোগসূত্র স্থাপিত হবে। তিনি এও বলতে ভোলেননি, যে তাঁর সব কাজে প্রেরণা রামই। তাঁর কথায়, '‌সকলেই রাম। সকলের মধ্যে বসত করে রাম।'‌ প্রধানমন্ত্রী যখন এসব বলছেন, ক্ষণে ক্ষণে স্লোগান উঠছে, '‌হর হর মহাদেব'‌, '‌ভারত মাতা কি জয়'‌। হলুদে রাঙানো গোটা অযোধ্যায় বাজছে ভজন আর শ্লোক। পতপত করে উড়ছে গেরুয়া-হলুদ পতাকা। সিসিটিভি পর্দায় অযোধ্যাবাসী দেখছেন ভূমিপুজো।করোনা-বিধির কারণে অনুষ্ঠানে অতিথি সংখ্যা নির্দিষ্ট রাখা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, সঙ্ঘ প্রধান মোহন ভাগবত, বিজেপি নেত্রী উমা ভারতী, ১৭০ জন ধর্মীয় গুরু এবং নেতা। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যোগ দিলেন লালকৃষ্ণ আডবানি এবং মুরলি মনোহর যোশি— রাম জন্মভূমি আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা।

আরো পড়ুন